ঢাকা ০৯:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নালিতাবাড়ীতে গ্রাহকের টাকা নিয়ে সুশীলন এনজিও উধাও

Spread the love

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে ঋণ দেওয়ার কথা বলে গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা নিয়ে উধাও হয়েছে সুশীলন নামে এক ভুয়া এনজিও সংস্থা।

ভুক্তভোগীরা এঘটনায় কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে প্রতিকার চেয়েছেন।

জানা গেছে উপজেলার মরিচপুরান, গোজাকুড়া,আন্ধারুপাড়া, ভোগাইপার সহ বেশ কিছু এলাকা থেকে জামানত হিসেবে কয়েক লক্ষ টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়েছে এনজিওটি।ভুক্তভোগীরা জানান বেশ কিছু দিন ধরে উপজেলার কালিনগর আঁখি কমপ্লেক্সে সুশীলন এনজিও সংস্থা নামে অফিস স্থাপন করে কাবুল খান (৩৬) ও ইমরান হোসেন (৩৯) সহ আরো কয়েকজন। পরে ইমরান হোসেন নিজেকে মাঠকর্মী ও কাবুল খানকে ম্যানেজার দাবি করে বিভিন্ন স্থানে সুশীলন এনজিওর নামে টাকা উত্তোলন করেন। তারা সাধারণ মানুষকে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের মাধ্যমে কর্মসংস্থান তৈরি ও এক লক্ষ টাকা করে ঋণ দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে হাতিয়ে নেন কয়েক লক্ষ টাকা। প্রতি এলাকা থেকে ৩০জন করে লোক নিয়ে কমিটি গঠন করেন এবং ফরম বাবদ ২৫০টাকা গ্রহন করেন।ওই ৩০জন থেকে প্রত্যেক এলাকায় ৫জনকে চুরান্তভাবে এক লক্ষ টাকা করে ঋণ দেওয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে ১০হাজার ৫৭০টাকা করে জামানত নেয় ভুয়া এনজিও সুশীলন।

আন্ধারুপাড়া গ্রামের ভুক্তভোগী মনি আক্তার বলেন সুশীলন এনজিও আমাদের এক লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা বলে একেকজনের কাছ থেকে ১০হাজার ৫৭০টাকা নিয়ে পালিয়েছে।

গোজাকুড়া গ্রামের ভুক্তভোগী জামিরা খাতুন বলেন সুশীলন এনজিওর মাঠকর্মী আমাদের বাড়িতে গিয়ে সমিতি করার কথা বলে এবং নানা ধরনের কাজ শেখানোর কথাও বলেন।পরে সমিতির ৩০জন সদস্য থেকে ৫জনকে ঋণ দেওয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে ১০হাজার ৫৭০টাকা করে জমা নেন। সোমবার আমরা ঋনের টাকা নিতে আসলে দেখি সুশীলন অফিসে তালা লাগানো।

মরিচপুরান(বেনীরগোপ) গ্রামের ভুক্তভোগী অটোচালক জুয়েল মিয়া বলেন সুশীলন এনজিওর কাছ থেকে ১লক্ষ টাকা ঋণ নেওয়ার আশায় আমরা ১০হাজার ৫৭০টাকা করে দেই।সোমবার ঋনের টাকার জন্য তাদের অফিসে গেলে অফিসে তালা লাগানো দেখি।পরে মাঠকর্মী ও ম্যানেজারকে ফোন দিলে তাদের নাম্বার বন্ধ দেখায়।

এঘটনায় ভুক্তভোগীদের মধ্য থেকে মনি আক্তার বাদী হয়ে নালিতাবাড়ী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

/আমিরুল ইসলাম/নালিতাবাড়ী /

জনপ্রিয় সংবাদ

নালিতাবাড়ীতে গ্রাহকের টাকা নিয়ে সুশীলন এনজিও উধাও

আপডেট সময় : ১০:০৪:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
Spread the love

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে ঋণ দেওয়ার কথা বলে গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা নিয়ে উধাও হয়েছে সুশীলন নামে এক ভুয়া এনজিও সংস্থা।

ভুক্তভোগীরা এঘটনায় কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে প্রতিকার চেয়েছেন।

জানা গেছে উপজেলার মরিচপুরান, গোজাকুড়া,আন্ধারুপাড়া, ভোগাইপার সহ বেশ কিছু এলাকা থেকে জামানত হিসেবে কয়েক লক্ষ টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়েছে এনজিওটি।ভুক্তভোগীরা জানান বেশ কিছু দিন ধরে উপজেলার কালিনগর আঁখি কমপ্লেক্সে সুশীলন এনজিও সংস্থা নামে অফিস স্থাপন করে কাবুল খান (৩৬) ও ইমরান হোসেন (৩৯) সহ আরো কয়েকজন। পরে ইমরান হোসেন নিজেকে মাঠকর্মী ও কাবুল খানকে ম্যানেজার দাবি করে বিভিন্ন স্থানে সুশীলন এনজিওর নামে টাকা উত্তোলন করেন। তারা সাধারণ মানুষকে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের মাধ্যমে কর্মসংস্থান তৈরি ও এক লক্ষ টাকা করে ঋণ দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে হাতিয়ে নেন কয়েক লক্ষ টাকা। প্রতি এলাকা থেকে ৩০জন করে লোক নিয়ে কমিটি গঠন করেন এবং ফরম বাবদ ২৫০টাকা গ্রহন করেন।ওই ৩০জন থেকে প্রত্যেক এলাকায় ৫জনকে চুরান্তভাবে এক লক্ষ টাকা করে ঋণ দেওয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে ১০হাজার ৫৭০টাকা করে জামানত নেয় ভুয়া এনজিও সুশীলন।

আন্ধারুপাড়া গ্রামের ভুক্তভোগী মনি আক্তার বলেন সুশীলন এনজিও আমাদের এক লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা বলে একেকজনের কাছ থেকে ১০হাজার ৫৭০টাকা নিয়ে পালিয়েছে।

গোজাকুড়া গ্রামের ভুক্তভোগী জামিরা খাতুন বলেন সুশীলন এনজিওর মাঠকর্মী আমাদের বাড়িতে গিয়ে সমিতি করার কথা বলে এবং নানা ধরনের কাজ শেখানোর কথাও বলেন।পরে সমিতির ৩০জন সদস্য থেকে ৫জনকে ঋণ দেওয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে ১০হাজার ৫৭০টাকা করে জমা নেন। সোমবার আমরা ঋনের টাকা নিতে আসলে দেখি সুশীলন অফিসে তালা লাগানো।

মরিচপুরান(বেনীরগোপ) গ্রামের ভুক্তভোগী অটোচালক জুয়েল মিয়া বলেন সুশীলন এনজিওর কাছ থেকে ১লক্ষ টাকা ঋণ নেওয়ার আশায় আমরা ১০হাজার ৫৭০টাকা করে দেই।সোমবার ঋনের টাকার জন্য তাদের অফিসে গেলে অফিসে তালা লাগানো দেখি।পরে মাঠকর্মী ও ম্যানেজারকে ফোন দিলে তাদের নাম্বার বন্ধ দেখায়।

এঘটনায় ভুক্তভোগীদের মধ্য থেকে মনি আক্তার বাদী হয়ে নালিতাবাড়ী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

/আমিরুল ইসলাম/নালিতাবাড়ী /