ঢাকা ০৬:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শর্টসার্কিট থেকে ইবির খালেদা জিয়া হলে আগুন

  • ইবি প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১২:৫৭:০৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ জুলাই ২০২৪
  • ৫২২ বার পড়া হয়েছে
Spread the love

বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের আবাসিক হল বেগম খালেদা জিয়া হলে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। হলের পুরাতন ব্লকের সার্কিট বোর্ড থেকে এই আগুনের সুত্রপাত হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ তবে বড় ধরনের কোন ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন>>ময়মনসিংহে ভার্চুয়াল কমিউনিকেশনস নিয়ে ভয়ংকর জালিয়াতি

সোমবার (৮ জুলাই) ভোর ৬:৫০ এর দিকে হলের নীচতলায় এ ঘটনা ঘটে। সার্কিট বোর্ড ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় এখন পর্যন্ত হলে বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এর আগে গতকাল রাত্রেও শর্ট সার্কিট হওয়ায় দীর্ঘক্ষণ হলের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ছিলো। ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গতকাল রাতেও একবার শর্ট সার্কিট হয়েছিলো। তারপর মিস্ত্রি এসে ঠিক করে দিয়ে গেলে সবকিছু স্বাভাবিক হয়। কিন্তু সকালে আবার হঠাৎ করে শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের স্ফুলিঙ্গ দেখা যায় এবং আগুন আশেপাশে জায়গা জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। শর্ট সার্কিট হলে প্রচন্ড শব্দে বৈদ্যুতিক ট্রান্সমিটারটি পুড়ে যায়। তারপর আধাঘন্টা পর হল কর্তৃপক্ষ আসে। হলে প্রায় ৭০০ শিক্ষার্থী থাকে কিন্তু হলে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র নেই। আমরা বিষয়টি নিয়ে আতঙ্কিত।

আরও পড়ুন>>নরসিংদীর রায়পুরায় ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ৫

হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. ইয়াসমিন আরা সাথী বলেন, শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের স্ফুলিঙ্গ দেখা যায়। এখানে তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি হয় নি। আমি হলেই আছি, মিস্ত্রি ডেকে ঠিক করিয়ে নিচ্ছি। সবকিছু স্বাভাবিক রয়েছে, শিক্ষার্থীদের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, ইতিমধ্যেই একটি কোম্পানির সাথে যোগাযোগ হয়েছে আমাদের। খুব দ্রুতই আমরা হলে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র লাগাচ্ছি।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী এ কে এম শরীফ উদ্দিন বলেন, আসলে এটা অনেক পুরানো হল তো, তখন আসলে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের কথা সেভাবে চিন্তা করা হয়নি। বর্তমানে যে নতুন বিল্ডিং গুলো হচ্ছে সেগুলোতে আমরা অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের ব্যবস্থা রেখেই তৈরি করছি। ইন্টারনাল ফল্টের কারণে শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে, আমরা এখানে আছি কাজ করছি, শিক্ষার্থীদের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। প্রভোস্টের সাথে আলোচনা করে খুব দ্রুতই অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র লাগানো হবে।

জনপ্রিয় সংবাদ

শর্টসার্কিট থেকে ইবির খালেদা জিয়া হলে আগুন

আপডেট সময় : ১২:৫৭:০৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ জুলাই ২০২৪
Spread the love

বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের আবাসিক হল বেগম খালেদা জিয়া হলে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। হলের পুরাতন ব্লকের সার্কিট বোর্ড থেকে এই আগুনের সুত্রপাত হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ তবে বড় ধরনের কোন ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন>>ময়মনসিংহে ভার্চুয়াল কমিউনিকেশনস নিয়ে ভয়ংকর জালিয়াতি

সোমবার (৮ জুলাই) ভোর ৬:৫০ এর দিকে হলের নীচতলায় এ ঘটনা ঘটে। সার্কিট বোর্ড ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় এখন পর্যন্ত হলে বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এর আগে গতকাল রাত্রেও শর্ট সার্কিট হওয়ায় দীর্ঘক্ষণ হলের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ছিলো। ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গতকাল রাতেও একবার শর্ট সার্কিট হয়েছিলো। তারপর মিস্ত্রি এসে ঠিক করে দিয়ে গেলে সবকিছু স্বাভাবিক হয়। কিন্তু সকালে আবার হঠাৎ করে শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের স্ফুলিঙ্গ দেখা যায় এবং আগুন আশেপাশে জায়গা জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। শর্ট সার্কিট হলে প্রচন্ড শব্দে বৈদ্যুতিক ট্রান্সমিটারটি পুড়ে যায়। তারপর আধাঘন্টা পর হল কর্তৃপক্ষ আসে। হলে প্রায় ৭০০ শিক্ষার্থী থাকে কিন্তু হলে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র নেই। আমরা বিষয়টি নিয়ে আতঙ্কিত।

আরও পড়ুন>>নরসিংদীর রায়পুরায় ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ৫

হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. ইয়াসমিন আরা সাথী বলেন, শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের স্ফুলিঙ্গ দেখা যায়। এখানে তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি হয় নি। আমি হলেই আছি, মিস্ত্রি ডেকে ঠিক করিয়ে নিচ্ছি। সবকিছু স্বাভাবিক রয়েছে, শিক্ষার্থীদের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, ইতিমধ্যেই একটি কোম্পানির সাথে যোগাযোগ হয়েছে আমাদের। খুব দ্রুতই আমরা হলে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র লাগাচ্ছি।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী এ কে এম শরীফ উদ্দিন বলেন, আসলে এটা অনেক পুরানো হল তো, তখন আসলে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের কথা সেভাবে চিন্তা করা হয়নি। বর্তমানে যে নতুন বিল্ডিং গুলো হচ্ছে সেগুলোতে আমরা অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের ব্যবস্থা রেখেই তৈরি করছি। ইন্টারনাল ফল্টের কারণে শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে, আমরা এখানে আছি কাজ করছি, শিক্ষার্থীদের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। প্রভোস্টের সাথে আলোচনা করে খুব দ্রুতই অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র লাগানো হবে।