ঢাকা ০২:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ধোবাউড়ায় বাঁধ ভেঙে ২০ গ্রাম প্লাবিত

Spread the love

ময়মনসিংহ ধোবাউড়ায় টানা দুই দিনের বর্ষণ এবং পাহাড়ী ঢলে নেতাই নদীর বাঁধ ভেঙ্গে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। গত সোমবার বিকাল থেকে মুষলদারে বৃষ্টি এবং উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে রংণসিংহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রহমতের বাজারের পাশে নেতাই নদীর বাঁধ ভেঙ্গে উপজেলার পোড়াকান্দুলিয়া, গামারীতলা ইউনিয়নের বতিহালা, কালিনগর, গপিণপুর কাওয়ারকান্দা, চরের ভিটা, বেতগাছিয়া, বহরভিটা, উদয়পুর, হরিণধরা,আঙ্গরাকান্দা, আটাম, পাতাম, রায়পুর, কামালপুর, চান্দেরনগর, গৌরীপুর, রংসিংহপুরসহ অন্তত ২০ গ্রাম বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এতে পানিবন্দি রয়েছে শত শত মানুষ। পানিবন্দী হয়ে পরছে পোড়াকান্দুলিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম।

সরেজমিনে দেখা গেছে প্রতিটি বাড়ির উঠানে বন্যার পানি। তলিয়ে গেছে গ্রামীণ রাস্তা ঘাট, চরম খাদ্য সংকটে রয়েছে মানুষ।

আরও পড়ুন>>কলাপাড়ায় রাসেল’স ভাইপার সাপ উদ্ধার

গবাদি পশু নিয়েও চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে তাদের এমতাবস্থায় চরম দুর্ভোগে রয়েছে এলাকার সাধারণ মানুষ। গামারীতলা ইউনিয়নের গৌরিপুর গ্রামের মইজ উদ্দিনের বাড়িটি নেতাই নদীর প্রবল স্রোতে ভেঙ্গে নিয়ে গেছে।

এব্যাপারে গামারীতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খান বলেন, ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করে কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিশাত শারমিন বলেন,পাহাড়ী ঢলে ভাঙ্গনের বিষয়টি পানি উন্নয়ন বোর্ডকে জানানো হয়েছে,বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তা করার প্রস্তুতিও চলছে। এদিকে বুধবার বিকালে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেন সাংসদ মাহমুদুল হক সায়েম এমপি।এসময় সঙ্গে ছিলেন গামারীতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খান।

জনপ্রিয় সংবাদ

ধোবাউড়ায় বাঁধ ভেঙে ২০ গ্রাম প্লাবিত

আপডেট সময় : ১১:৪০:১৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪
Spread the love

ময়মনসিংহ ধোবাউড়ায় টানা দুই দিনের বর্ষণ এবং পাহাড়ী ঢলে নেতাই নদীর বাঁধ ভেঙ্গে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। গত সোমবার বিকাল থেকে মুষলদারে বৃষ্টি এবং উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে রংণসিংহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রহমতের বাজারের পাশে নেতাই নদীর বাঁধ ভেঙ্গে উপজেলার পোড়াকান্দুলিয়া, গামারীতলা ইউনিয়নের বতিহালা, কালিনগর, গপিণপুর কাওয়ারকান্দা, চরের ভিটা, বেতগাছিয়া, বহরভিটা, উদয়পুর, হরিণধরা,আঙ্গরাকান্দা, আটাম, পাতাম, রায়পুর, কামালপুর, চান্দেরনগর, গৌরীপুর, রংসিংহপুরসহ অন্তত ২০ গ্রাম বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এতে পানিবন্দি রয়েছে শত শত মানুষ। পানিবন্দী হয়ে পরছে পোড়াকান্দুলিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম।

সরেজমিনে দেখা গেছে প্রতিটি বাড়ির উঠানে বন্যার পানি। তলিয়ে গেছে গ্রামীণ রাস্তা ঘাট, চরম খাদ্য সংকটে রয়েছে মানুষ।

আরও পড়ুন>>কলাপাড়ায় রাসেল’স ভাইপার সাপ উদ্ধার

গবাদি পশু নিয়েও চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে তাদের এমতাবস্থায় চরম দুর্ভোগে রয়েছে এলাকার সাধারণ মানুষ। গামারীতলা ইউনিয়নের গৌরিপুর গ্রামের মইজ উদ্দিনের বাড়িটি নেতাই নদীর প্রবল স্রোতে ভেঙ্গে নিয়ে গেছে।

এব্যাপারে গামারীতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খান বলেন, ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করে কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিশাত শারমিন বলেন,পাহাড়ী ঢলে ভাঙ্গনের বিষয়টি পানি উন্নয়ন বোর্ডকে জানানো হয়েছে,বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তা করার প্রস্তুতিও চলছে। এদিকে বুধবার বিকালে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেন সাংসদ মাহমুদুল হক সায়েম এমপি।এসময় সঙ্গে ছিলেন গামারীতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খান।