ঢাকা ১০:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডেনমার্ককে বিদায় করে কোয়ার্টার ফাইনালে জার্মানি

  • স্পোর্টস ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১১:২০:৫৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুন ২০২৪
  • ৫২৭ বার পড়া হয়েছে
Spread the love

বৃষ্টির বাগড়া কাটিয়ে আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে ঠাসা উত্তেজনাপূর্ণ এক ম্যাচের মঞ্চায়ন হয়ে গেল ডর্টমুন্ডের সিগন্যাল ইদুনা পার্কে, যেখানে ডেনিশদের চোখের জলে ভাসিয়ে ইউরোর মঞ্চ থেকে বিদায় দিলো জার্মানি। একের পর এক গোল বাতিলের মহড়ার মাঝেই হেভার্টজ আর মুসিয়ালার গোলের সুবাদে সুইজারল্যান্ডের পর কোয়ার্টার ফাইনালে পা রাখলো স্বাগতিকরা। অন্যদিকে কোনো ম্যাচ না জিতেই এবারের ইউরো যাত্রা শেষ করলো ডেনমার্ক।

বল মাঠে গড়াতেই দাপট দেখিয়ে খেলতে থাকে জার্মানি। তবে জসুয়া কিমিচ-কাই হাভার্টজদের একের পর এক আক্রমণের সামনে অভেদ্য এক দেওয়াল হয়ে দাঁড়ান ড্যানিশ গোলরক্ষক কেসপার স্মেইকেল। অবশ্য ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই এগিয়ে এগিয়ে হিয়েছিক স্বাগতিকরা, যদি না হেডের মাধ্যমে করা জার্মান ডিফেন্ডার স্লটারব্যাকের গোলটা বাতিল করে দিতেন রেফারি।

আরও পড়ুন>>গাজায় ইসরায়েলি হামলায় আরও ৪০ ফিলিস্তিনি নিহত

ডেনিশদের দুর্দশার পূর্বাভাস দিতেই কি না কে জানে, ম্যাচের মাঝপথে ভয়াবহ বজ্রপাতে কেঁপে ওঠে পুরো ইদুনা পার্ক। এরপরই অঝোরে বৃষ্টি। ম্যাচের তখন ৩৫ মিনিট। এ অবস্থায় খেলা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব না হওয়ায় ম্যাচ সাময়িক স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেন রেফারি। প্রায় ২০ মিনিট পর আবার মাঠে গড়ায় বল।

দুই মিনিট যেতেই গোল করার আরেকটি সুযোগ আসে স্বাগতিকদের সামনে। সেট পিস থেকে তৈরি হওয়া সুযোগে বক্সের মধ্যে হেড নিয়েছিলেন স্লটারব্যাক। কিন্তু একটুর জন্য সেটি বেরিয়ে যায় গোলপোস্টের বাঁদিক দিয়ে।

মিনিট সাতেক বাদে সুযোগ আসে ডেনমার্কেরও। প্রথমার্ধের অন্তিম মুহূর্তে কঠিন অ্যাঙ্গেল থেকে করা রাসমুস হাজলান্ডের ডানপায়ের শটটা বেশ ক্লোজ ছিল। কিন্তু ম্যানুয়েল নয়্যারের হাত ছুঁইয়ে ডানদিকের পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায় বলটা। ফলে গোলশূন্য সমতাতেই শেষ হয় প্রথমার্ধ।

প্রথমার্ধে আক্রমণের শুরুটা যেখানে করেছিল জার্মানি, দ্বিতীয়ার্ধে সেই শুরুটা করে ডেনমার্ক। ফলাফলও ধরা দেয় হাতেনাতে। ৪৮তম মিনিটে গোল পেয়েই গিয়েছিল ডেনিশরা। এরিকসনের ফ্রি-কিক ক্লিয়ার করতে পারেনি জার্মান রক্ষণভাগ, বল চলে যায় জোয়াকিম অ্যান্ডারসনের কাছে। তিনিও সেটিকে জড়িয়ে দেন জালে। তখনই বেরসিক ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির বাগড়া। দুই মিনিট ধরে ভিএআর চেক করে অফসাইডের সিদ্ধান্ত দেন মাঠের রেফারি।

আরও পড়ুন>>পেরুকে হারিয়ে দুর্দান্ত জয় আর্জেন্টিনার

ম্যাচের ৫২ তম মিনিটে এসে অবশেষে কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায় জার্মানি। বক্সের মধ্যে রাউমের ক্রস আটকাতে গিয়ে বল হাতে লেগে যায় ড্যানিশ ডিফেন্ডার জোয়াকিম অ্যান্ডারসনের।

ভিএআর দেখে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন রেফারি। পেনাল্টি স্পট থেকে বাঁ পায়ের শটে গোল করে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন কাই হাভার্টজ। মিনিট ছয়েক বাদের গোলের আরও একটা সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননই জার্মান এ স্ট্রাইকার।

আরও পড়ুন>>রেস্টুরেন্টে বসেই প্রেমিকের পুরুষাঙ্গ কর্তন প্রেমিকার

অবশ্য ৯ মিনিট যেতেই গোলের ব্যবধান দ্বিগুণ করে জার্মানির তরুণ তুর্কি জামাল মুসিয়ালা। স্লটারব্যাকের কাছ থেকে আসা লম্বা পাসের বলটা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ঢুকে পড়েন ডেনিস বক্সে; এরপরই ডান পায়ের দারুণ এক বাঁকানো শটে পরাস্ত করেন স্মাইকেলকে। এরপর আরও আক্রমণ-প্রতি আক্রমণ হলেও গোলের তেমন কোনো সুযোগ সৃষ্টি করতে পারে নি কোনো দলই।

আরও পড়ুন>>গৃহকর্মীকে ধর্ষণ করে ভিডিও ফেসবুকে, চিকিৎসক গ্রেপ্তার

বদলি হিসেবে নামা জার্মান উইঙ্গার ফ্লোরিয়ান রিটজ ম্যাচের অন্তিম মুহূর্তে আরেকটি গোলের দেখা পেলেও অফসাইডের সিদ্ধান্তে সেটি বাতিল করে দেন রেফারি। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের জয় নিয়েই ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে যাওয়ার আনন্দে ভাসে স্বাগতিকরা। অন্যদিকে জয়হীন থেকেই এবারের ইউরোর মঞ্চ থেকে বিদায় নেন স্মেইকেল ও তার সতীর্থরা।

জনপ্রিয় সংবাদ

ডেনমার্ককে বিদায় করে কোয়ার্টার ফাইনালে জার্মানি

আপডেট সময় : ১১:২০:৫৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুন ২০২৪
Spread the love

বৃষ্টির বাগড়া কাটিয়ে আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে ঠাসা উত্তেজনাপূর্ণ এক ম্যাচের মঞ্চায়ন হয়ে গেল ডর্টমুন্ডের সিগন্যাল ইদুনা পার্কে, যেখানে ডেনিশদের চোখের জলে ভাসিয়ে ইউরোর মঞ্চ থেকে বিদায় দিলো জার্মানি। একের পর এক গোল বাতিলের মহড়ার মাঝেই হেভার্টজ আর মুসিয়ালার গোলের সুবাদে সুইজারল্যান্ডের পর কোয়ার্টার ফাইনালে পা রাখলো স্বাগতিকরা। অন্যদিকে কোনো ম্যাচ না জিতেই এবারের ইউরো যাত্রা শেষ করলো ডেনমার্ক।

বল মাঠে গড়াতেই দাপট দেখিয়ে খেলতে থাকে জার্মানি। তবে জসুয়া কিমিচ-কাই হাভার্টজদের একের পর এক আক্রমণের সামনে অভেদ্য এক দেওয়াল হয়ে দাঁড়ান ড্যানিশ গোলরক্ষক কেসপার স্মেইকেল। অবশ্য ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই এগিয়ে এগিয়ে হিয়েছিক স্বাগতিকরা, যদি না হেডের মাধ্যমে করা জার্মান ডিফেন্ডার স্লটারব্যাকের গোলটা বাতিল করে দিতেন রেফারি।

আরও পড়ুন>>গাজায় ইসরায়েলি হামলায় আরও ৪০ ফিলিস্তিনি নিহত

ডেনিশদের দুর্দশার পূর্বাভাস দিতেই কি না কে জানে, ম্যাচের মাঝপথে ভয়াবহ বজ্রপাতে কেঁপে ওঠে পুরো ইদুনা পার্ক। এরপরই অঝোরে বৃষ্টি। ম্যাচের তখন ৩৫ মিনিট। এ অবস্থায় খেলা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব না হওয়ায় ম্যাচ সাময়িক স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেন রেফারি। প্রায় ২০ মিনিট পর আবার মাঠে গড়ায় বল।

দুই মিনিট যেতেই গোল করার আরেকটি সুযোগ আসে স্বাগতিকদের সামনে। সেট পিস থেকে তৈরি হওয়া সুযোগে বক্সের মধ্যে হেড নিয়েছিলেন স্লটারব্যাক। কিন্তু একটুর জন্য সেটি বেরিয়ে যায় গোলপোস্টের বাঁদিক দিয়ে।

মিনিট সাতেক বাদে সুযোগ আসে ডেনমার্কেরও। প্রথমার্ধের অন্তিম মুহূর্তে কঠিন অ্যাঙ্গেল থেকে করা রাসমুস হাজলান্ডের ডানপায়ের শটটা বেশ ক্লোজ ছিল। কিন্তু ম্যানুয়েল নয়্যারের হাত ছুঁইয়ে ডানদিকের পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায় বলটা। ফলে গোলশূন্য সমতাতেই শেষ হয় প্রথমার্ধ।

প্রথমার্ধে আক্রমণের শুরুটা যেখানে করেছিল জার্মানি, দ্বিতীয়ার্ধে সেই শুরুটা করে ডেনমার্ক। ফলাফলও ধরা দেয় হাতেনাতে। ৪৮তম মিনিটে গোল পেয়েই গিয়েছিল ডেনিশরা। এরিকসনের ফ্রি-কিক ক্লিয়ার করতে পারেনি জার্মান রক্ষণভাগ, বল চলে যায় জোয়াকিম অ্যান্ডারসনের কাছে। তিনিও সেটিকে জড়িয়ে দেন জালে। তখনই বেরসিক ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির বাগড়া। দুই মিনিট ধরে ভিএআর চেক করে অফসাইডের সিদ্ধান্ত দেন মাঠের রেফারি।

আরও পড়ুন>>পেরুকে হারিয়ে দুর্দান্ত জয় আর্জেন্টিনার

ম্যাচের ৫২ তম মিনিটে এসে অবশেষে কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায় জার্মানি। বক্সের মধ্যে রাউমের ক্রস আটকাতে গিয়ে বল হাতে লেগে যায় ড্যানিশ ডিফেন্ডার জোয়াকিম অ্যান্ডারসনের।

ভিএআর দেখে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন রেফারি। পেনাল্টি স্পট থেকে বাঁ পায়ের শটে গোল করে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন কাই হাভার্টজ। মিনিট ছয়েক বাদের গোলের আরও একটা সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননই জার্মান এ স্ট্রাইকার।

আরও পড়ুন>>রেস্টুরেন্টে বসেই প্রেমিকের পুরুষাঙ্গ কর্তন প্রেমিকার

অবশ্য ৯ মিনিট যেতেই গোলের ব্যবধান দ্বিগুণ করে জার্মানির তরুণ তুর্কি জামাল মুসিয়ালা। স্লটারব্যাকের কাছ থেকে আসা লম্বা পাসের বলটা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ঢুকে পড়েন ডেনিস বক্সে; এরপরই ডান পায়ের দারুণ এক বাঁকানো শটে পরাস্ত করেন স্মাইকেলকে। এরপর আরও আক্রমণ-প্রতি আক্রমণ হলেও গোলের তেমন কোনো সুযোগ সৃষ্টি করতে পারে নি কোনো দলই।

আরও পড়ুন>>গৃহকর্মীকে ধর্ষণ করে ভিডিও ফেসবুকে, চিকিৎসক গ্রেপ্তার

বদলি হিসেবে নামা জার্মান উইঙ্গার ফ্লোরিয়ান রিটজ ম্যাচের অন্তিম মুহূর্তে আরেকটি গোলের দেখা পেলেও অফসাইডের সিদ্ধান্তে সেটি বাতিল করে দেন রেফারি। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের জয় নিয়েই ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে যাওয়ার আনন্দে ভাসে স্বাগতিকরা। অন্যদিকে জয়হীন থেকেই এবারের ইউরোর মঞ্চ থেকে বিদায় নেন স্মেইকেল ও তার সতীর্থরা।