ঢাকা ০১:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কলাপাড়ায় কলেজ ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার

Spread the love

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার চম্পাপুর ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামে কলেজ ছাত্রী শামীমা আক্তারের গলায় ফাঁস দেয়া ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে কলাপাড়া থানা পুলিশ।

শুক্রবার রাতে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে। নিহত শামীমা ধানখালী ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় রর্ষের ছাত্রী ও চম্পাপুরের রুহুল আমিন শেখের মেয়ে।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, শামীমা আক্তারের পিতা শারীরিক প্রতিবন্ধী। হুইল চেয়ারে চলাফেরা করায় মেয়ের ভবিষ্যত চিন্তা করে তিন মাস পূর্বে একই ইউনিয়নের জাহিদুল ইসলামের সাথে বিয়ে দেয়। এটা স্বাভাবিক মেনে নিতে পারে নি শামীমা। এ কারনে সে মানসিক সমস্যায় প্রায়ই অসুস্থ হয়ে পড়তো। শুক্রবার শামীমাকে ঘরে রেখে তার মা হাসিনা বেগম বাড়ির একটু দূরে স্বামীর দোকানে যায়। এর একটু পরই আশেপাশের লোকজনের ডাক চিৎকার শুনে ঘরে গিয়ে দেখে মেয়ে শামীমা ওড়না দিয়ে ঘরের মেঝের ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে।

স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী আহমেদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ নেয়ার প্রস্তুতি চলছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

কলাপাড়ায় কলেজ ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৩:৩০:৪৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ জুন ২০২৪
Spread the love

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার চম্পাপুর ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামে কলেজ ছাত্রী শামীমা আক্তারের গলায় ফাঁস দেয়া ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে কলাপাড়া থানা পুলিশ।

শুক্রবার রাতে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে। নিহত শামীমা ধানখালী ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় রর্ষের ছাত্রী ও চম্পাপুরের রুহুল আমিন শেখের মেয়ে।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, শামীমা আক্তারের পিতা শারীরিক প্রতিবন্ধী। হুইল চেয়ারে চলাফেরা করায় মেয়ের ভবিষ্যত চিন্তা করে তিন মাস পূর্বে একই ইউনিয়নের জাহিদুল ইসলামের সাথে বিয়ে দেয়। এটা স্বাভাবিক মেনে নিতে পারে নি শামীমা। এ কারনে সে মানসিক সমস্যায় প্রায়ই অসুস্থ হয়ে পড়তো। শুক্রবার শামীমাকে ঘরে রেখে তার মা হাসিনা বেগম বাড়ির একটু দূরে স্বামীর দোকানে যায়। এর একটু পরই আশেপাশের লোকজনের ডাক চিৎকার শুনে ঘরে গিয়ে দেখে মেয়ে শামীমা ওড়না দিয়ে ঘরের মেঝের ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে।

স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী আহমেদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ নেয়ার প্রস্তুতি চলছে।