ঢাকা ০৭:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নালিতাবাড়ীতে ভারতীয় বন‍্যহাতি তাড়াতে গিয়ে কৃষক নিহত

Spread the love

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে ভারতীয় বন্যহাতির তাণ্ডব থেকে ফসল রক্ষা করতে গিয়ে হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে আলহাজ্ব উমর আলী মিস্ত্রী (৬০) নামের এক কৃষক।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) রাত ১০টা থেকে ১১ টার দিকে উপজেলার বাতকুচি (টিলাপাড়া) গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত উমর আলী ওই গ্রামের মৃত তমিজ উদ্দিনের ছেলে। গভীর রাতেই পাহাড় থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে তার স্বজনরা।

জানা গেছে, উপজেলার পোড়াগাঁও ইউনিয়নের বাতকুচি গ্রামের পাহাড়ি ঢালে রোপিত বোরোধান ক্ষেতে গত প্রায় ৩ দিন যাবত প্রায় ৪০/৪৫ টি বন্যহাতির পাল নেমে এসে ফসল খেয়ে ও পা দিয়ে মাড়িয়ে নষ্ট করে আসছিল। বৃহস্পতিবার রাতে ওই হাতির দলটি বাতকুচি গ্রামের পানার খোল নামক পাহাড়ি ঘোপে রোপিত বোরো ধান খেতে চলে আসে।

এ সময় উমর আলী মিস্ত্রী ও গ্রামবাসীরা তাদের ফসল রক্ষার জন্য মশাল জ্বালিয়ে ডাক চিৎকার করে ওই এলাকায় প্রতিরোধ গড়ে তুলেন। এক পর্যায়ে বন্যহাতির দলটি একটু পিছু হটলে নিজ বাড়ির দিকে আসতে থাকেন উমর আলী। পথিমধ্যেই পাহাড়ে লুকিয়ে থাকা ওই হাতির দলটি উমর আলীর উপর আক্রমন চালিয়ে মাটিতে ফেলে পা দিয়ে পিষ্ট করে ঘটনাস্থলেই নিহত করে।

পরে রাতেই স্বজনরা ঘটনাস্থল থেকে উমর আলীর মরদেহ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে।

ময়মনসিংহ বন বিভাগের মধুটিলা ফরেষ্ট রেঞ্জকর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়েছিলাম। হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে নিহত উমর আলীর পরিবারকে বন বিভাগের পক্ষ থেকে সরকারীভাবে ৩ লাখ টাকা ক্ষতিপুরণ দেওয়ার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

এবিষয়ে নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল আলম ভুইয়া সাংবাদিকদের জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন প্রক্রিয়াধীন।

জনপ্রিয় সংবাদ

নালিতাবাড়ীতে ভারতীয় বন‍্যহাতি তাড়াতে গিয়ে কৃষক নিহত

আপডেট সময় : ১০:৪০:৪০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪
Spread the love

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে ভারতীয় বন্যহাতির তাণ্ডব থেকে ফসল রক্ষা করতে গিয়ে হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে আলহাজ্ব উমর আলী মিস্ত্রী (৬০) নামের এক কৃষক।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) রাত ১০টা থেকে ১১ টার দিকে উপজেলার বাতকুচি (টিলাপাড়া) গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত উমর আলী ওই গ্রামের মৃত তমিজ উদ্দিনের ছেলে। গভীর রাতেই পাহাড় থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে তার স্বজনরা।

জানা গেছে, উপজেলার পোড়াগাঁও ইউনিয়নের বাতকুচি গ্রামের পাহাড়ি ঢালে রোপিত বোরোধান ক্ষেতে গত প্রায় ৩ দিন যাবত প্রায় ৪০/৪৫ টি বন্যহাতির পাল নেমে এসে ফসল খেয়ে ও পা দিয়ে মাড়িয়ে নষ্ট করে আসছিল। বৃহস্পতিবার রাতে ওই হাতির দলটি বাতকুচি গ্রামের পানার খোল নামক পাহাড়ি ঘোপে রোপিত বোরো ধান খেতে চলে আসে।

এ সময় উমর আলী মিস্ত্রী ও গ্রামবাসীরা তাদের ফসল রক্ষার জন্য মশাল জ্বালিয়ে ডাক চিৎকার করে ওই এলাকায় প্রতিরোধ গড়ে তুলেন। এক পর্যায়ে বন্যহাতির দলটি একটু পিছু হটলে নিজ বাড়ির দিকে আসতে থাকেন উমর আলী। পথিমধ্যেই পাহাড়ে লুকিয়ে থাকা ওই হাতির দলটি উমর আলীর উপর আক্রমন চালিয়ে মাটিতে ফেলে পা দিয়ে পিষ্ট করে ঘটনাস্থলেই নিহত করে।

পরে রাতেই স্বজনরা ঘটনাস্থল থেকে উমর আলীর মরদেহ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে।

ময়মনসিংহ বন বিভাগের মধুটিলা ফরেষ্ট রেঞ্জকর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়েছিলাম। হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে নিহত উমর আলীর পরিবারকে বন বিভাগের পক্ষ থেকে সরকারীভাবে ৩ লাখ টাকা ক্ষতিপুরণ দেওয়ার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

এবিষয়ে নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল আলম ভুইয়া সাংবাদিকদের জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন প্রক্রিয়াধীন।