ঢাকা ১২:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাইডেন-নেতানিয়াহু ফোনালাপ

Spread the love

ইসরায়েলে ভূখণ্ডে ইরানের ড্রোন ও ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে ফোনালাপ করেছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। রোববার (১৪ এপ্রিল) সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় জানিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর ফোনালাপ হয়েছে। ইরান ইসরায়েলের হামলা চালানোর পর এই দুই নেতার মধ্যে এটাই প্রথম ফোনালাপ।

এর আগে এক বিবৃতিতে ইসরায়েলে হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বাইডেন। বিবৃতিতে তেল আবিবকে ওয়াশিংটনের মতো সুরক্ষা দেয়ার প্রতিশ্রুতি পুর্নব্যক্ত করেন বাইডেন। এই অঞ্চলে মার্কিন বাহিনী এবং তাদের কোনো স্থাপনা ইরানের লক্ষ্যবস্তু না হলেও সমস্ত হুমকির বিরুদ্ধে সতর্ক রয়েছে বলে বিবৃতিতে বলা হয়। এছাড়া ইরানি ড্রোন ভূপাতিত করতে যুক্তরাষ্ট্র ইরানকে সহায়তা করেছে বলেও উল্লেখ করেন বাইডেন।

ধারণা করা হচ্ছে, ইরানে পাল্টা হামলার বিষয়ে তাদের মধ্যে কথা হয়েছে। এছাঢ়া মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকার নিয়ন্ত্রণ রক্ষা ও ফিলিস্তিনে ইসরায়েলে অভিযানের বিষয়ে নতুন করে ভাবনা চিন্তার বিষয়ে ফোনালাপে আলোচনা করেছেন এই দুই নেতা।

আল জাজিরার ভাষ্য, এই হামলার কারণে মধ্যপ্রাচ্যে বৈশ্বিক রাজনীতি নতুন পথে মোড় নিয়েছে। এমতাবস্থায়, শুধু ইরান ইসরায়েল নয় মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশগুলোও নতুন করে হিসাব নিকাষ করতে শুরু করেছেন। এতে ইরান-ইসরায়েল যুদ্ধ শুরু হলে তা সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলেও সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে। এদিকে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছে ইসরায়েল। সেখানে ইরানের হামলার নিন্দা জানাতে অনুরোধ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১ এপ্রিল সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে অবস্থিত ইরানি কনস্যুলেটে ভয়াবহ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইসরায়েল। এতে বিপ্লবী গার্ডের দুই কমান্ডারসহ উচ্চপদস্থ সাত কর্মকর্তা নিহত হন।

সে হামলার জবাবে শনিবার (১৩ এপ্রিল) রাতে ইসরায়েলের ভূখণ্ড লক্ষ্য করে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে ইরান। এ হামলায় তাদের সঙ্গে যোগ দেয় ইয়েমেনের ইরানপন্থি সশস্ত্র গোষ্ঠী হুতি। এরপর লেবাননের সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহর পক্ষ থেকেও ইসরায়েলে রকেট হামলা চালানো হয়েছে বলে জাননো হয়।

ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ড কোর (আইআরজিসি) জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শনিবার ইসরায়েলের ভূখণ্ড লক্ষ্য করে কয়েক ডজন ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে তারা। ‘ট্রু প্রোমিজ’ নামে অভিযানের আওতায় এসব হামলা চালানো হয়।

জনপ্রিয় সংবাদ

বাইডেন-নেতানিয়াহু ফোনালাপ

আপডেট সময় : ১১:২৯:০৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪
Spread the love

ইসরায়েলে ভূখণ্ডে ইরানের ড্রোন ও ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে ফোনালাপ করেছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। রোববার (১৪ এপ্রিল) সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় জানিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর ফোনালাপ হয়েছে। ইরান ইসরায়েলের হামলা চালানোর পর এই দুই নেতার মধ্যে এটাই প্রথম ফোনালাপ।

এর আগে এক বিবৃতিতে ইসরায়েলে হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বাইডেন। বিবৃতিতে তেল আবিবকে ওয়াশিংটনের মতো সুরক্ষা দেয়ার প্রতিশ্রুতি পুর্নব্যক্ত করেন বাইডেন। এই অঞ্চলে মার্কিন বাহিনী এবং তাদের কোনো স্থাপনা ইরানের লক্ষ্যবস্তু না হলেও সমস্ত হুমকির বিরুদ্ধে সতর্ক রয়েছে বলে বিবৃতিতে বলা হয়। এছাড়া ইরানি ড্রোন ভূপাতিত করতে যুক্তরাষ্ট্র ইরানকে সহায়তা করেছে বলেও উল্লেখ করেন বাইডেন।

ধারণা করা হচ্ছে, ইরানে পাল্টা হামলার বিষয়ে তাদের মধ্যে কথা হয়েছে। এছাঢ়া মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকার নিয়ন্ত্রণ রক্ষা ও ফিলিস্তিনে ইসরায়েলে অভিযানের বিষয়ে নতুন করে ভাবনা চিন্তার বিষয়ে ফোনালাপে আলোচনা করেছেন এই দুই নেতা।

আল জাজিরার ভাষ্য, এই হামলার কারণে মধ্যপ্রাচ্যে বৈশ্বিক রাজনীতি নতুন পথে মোড় নিয়েছে। এমতাবস্থায়, শুধু ইরান ইসরায়েল নয় মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশগুলোও নতুন করে হিসাব নিকাষ করতে শুরু করেছেন। এতে ইরান-ইসরায়েল যুদ্ধ শুরু হলে তা সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলেও সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে। এদিকে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছে ইসরায়েল। সেখানে ইরানের হামলার নিন্দা জানাতে অনুরোধ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১ এপ্রিল সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে অবস্থিত ইরানি কনস্যুলেটে ভয়াবহ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইসরায়েল। এতে বিপ্লবী গার্ডের দুই কমান্ডারসহ উচ্চপদস্থ সাত কর্মকর্তা নিহত হন।

সে হামলার জবাবে শনিবার (১৩ এপ্রিল) রাতে ইসরায়েলের ভূখণ্ড লক্ষ্য করে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে ইরান। এ হামলায় তাদের সঙ্গে যোগ দেয় ইয়েমেনের ইরানপন্থি সশস্ত্র গোষ্ঠী হুতি। এরপর লেবাননের সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহর পক্ষ থেকেও ইসরায়েলে রকেট হামলা চালানো হয়েছে বলে জাননো হয়।

ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ড কোর (আইআরজিসি) জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শনিবার ইসরায়েলের ভূখণ্ড লক্ষ্য করে কয়েক ডজন ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে তারা। ‘ট্রু প্রোমিজ’ নামে অভিযানের আওতায় এসব হামলা চালানো হয়।