ঢাকা ০৯:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
হিজাব-নিকাব নিয়ে কটাক্ষ

রাবির সেই শিক্ষককে পাঁচ বছরের জন্য অব্যাহতি

Spread the love

শ্রেণিকক্ষে ছাত্রীদের হিজাব-নিকাব খুলতে বাধ্য করা ও বিভিন্ন শিক্ষার্থীকে মেসেঞ্জারে ‘আপত্তিকর বার্তা’ পাঠিয়ে হয়রানি করা ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হাফিজুর রহমানকে একাডেমিক কার্যক্রম থেকে পাঁচ বছরের জন্য অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিকেলে ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মোহা. আশরাফ উজ জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মোহা. আশরাফ উজ জামান জানান, শিক্ষার্থীদের অভিযোগের ভিত্তিতে আজ একাডেমিক কমিটির সভা হয়। সভায় কমিটির সদস্যদের সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে সহযোগী অধ্যাপক হাফিজুর রহমানকে পাঁচ বছরের জন্য একাডেমিক কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওই শিক্ষক অভিযোগ স্বীকার করায় কোনো তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়নি। আজ থেকেই অব্যাহতি কার্যকর হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার বিকালে ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থীরা কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে অভিযোগ করেন সহযোগী অধ্যাপক হাফিজুর রহমান শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীকে হিজাব-নিকাব খুলতে বাধ্য করা ও ম্যাসেন্জারে অপ্রতিকর বার্তা পাঠিয়ে হেনস্থা করে। মানববন্ধন কর্মসূচিতে তারা সেই শিক্ষকের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীরা বিভাগের সভাপতির নিকট লিখিত অভিযোগ করেন।

এরই প্রেক্ষিতে আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় একাডেমিক কমিটির সভা বসে। সভায় অভিযোগের আলোচনা সাপেক্ষে ওই শিক্ষককে পাঁচ বছরের জন্য একাডেমিক কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির সুপারিশ করেন কমিটির সদস্যারা।

এদিকে আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘স্টুডেন্ট রাইটস অ্যাসোসিয়েশন’ এর আয়োজনে সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবন সংলগ্ন প্যারিস রোডে একটি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ কর্মসূচি থেকে হাফিজুর রহমানকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন শিক্ষার্থীরা। ওই শিক্ষককে ক্লাস ও পরীক্ষা থেকে অব্যাহতি দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের দাবিও জানান তারা।

 

জনপ্রিয় সংবাদ

হিজাব-নিকাব নিয়ে কটাক্ষ

রাবির সেই শিক্ষককে পাঁচ বছরের জন্য অব্যাহতি

আপডেট সময় : ০৭:৩৮:৪২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ মার্চ ২০২৪
Spread the love

শ্রেণিকক্ষে ছাত্রীদের হিজাব-নিকাব খুলতে বাধ্য করা ও বিভিন্ন শিক্ষার্থীকে মেসেঞ্জারে ‘আপত্তিকর বার্তা’ পাঠিয়ে হয়রানি করা ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হাফিজুর রহমানকে একাডেমিক কার্যক্রম থেকে পাঁচ বছরের জন্য অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিকেলে ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মোহা. আশরাফ উজ জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মোহা. আশরাফ উজ জামান জানান, শিক্ষার্থীদের অভিযোগের ভিত্তিতে আজ একাডেমিক কমিটির সভা হয়। সভায় কমিটির সদস্যদের সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে সহযোগী অধ্যাপক হাফিজুর রহমানকে পাঁচ বছরের জন্য একাডেমিক কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওই শিক্ষক অভিযোগ স্বীকার করায় কোনো তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়নি। আজ থেকেই অব্যাহতি কার্যকর হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার বিকালে ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থীরা কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে অভিযোগ করেন সহযোগী অধ্যাপক হাফিজুর রহমান শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীকে হিজাব-নিকাব খুলতে বাধ্য করা ও ম্যাসেন্জারে অপ্রতিকর বার্তা পাঠিয়ে হেনস্থা করে। মানববন্ধন কর্মসূচিতে তারা সেই শিক্ষকের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীরা বিভাগের সভাপতির নিকট লিখিত অভিযোগ করেন।

এরই প্রেক্ষিতে আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় একাডেমিক কমিটির সভা বসে। সভায় অভিযোগের আলোচনা সাপেক্ষে ওই শিক্ষককে পাঁচ বছরের জন্য একাডেমিক কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির সুপারিশ করেন কমিটির সদস্যারা।

এদিকে আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘স্টুডেন্ট রাইটস অ্যাসোসিয়েশন’ এর আয়োজনে সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবন সংলগ্ন প্যারিস রোডে একটি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ কর্মসূচি থেকে হাফিজুর রহমানকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন শিক্ষার্থীরা। ওই শিক্ষককে ক্লাস ও পরীক্ষা থেকে অব্যাহতি দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের দাবিও জানান তারা।